ইউরোপীয় পার্লামেন্টে ব্রেক্সিট চুক্তি পাস

ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) থেকে যুক্তরাজ্যের বেরিয়ে যাওয়ার শর্ত বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতায় পাস হলো ইউরোপীয় পার্লামেন্টে। ব্রাসেলসে আবেগঘন বিতর্কের পর বুধবার ব্রেক্সিট প্রত্যাহার চুক্তির পক্ষে ভোট পড়ে ৬২১টি আর বিপক্ষে ৪৯টি।

বেশ কয়েকজন এমইপি (ইউরোপীয় পার্লামেন্ট সদস্য) বলেছেন, তারা আশাবাদী যে ব্রিটেন আবারও ইউরোপের এই জোটে ফিরবে। আগামী শুক্রবার ইইউ ছাড়বে ব্রিটেন। খবর বিবিসির।

ব্রিটেনের এই বিদায়ক্ষণে বেশ কিছু এমইপি গান গেয়েছেন। অন্যরা পরেছেন ‘সর্বদা ঐক্যবদ্ধ’ স্কার্ফ। ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ভন ডের লিয়েন যুক্তরাজ্যকে বলেছেন, ‘আমরা সব সময় তোমাদের ভালোবেসে যাব।’

ইইউর সদস্যপদ ছাড়ার বিতর্কে অংশ নিয়ে ব্রিটেনের ৭৩ এমইপির কেউ কেউ উল্লাস করেছেন; অন্যরা ছিলেন শোকাহত। ভন ডের লিয়েন বলেছেন, ব্রিটেনের এই সদস্যপদ প্রত্যাহার সত্ত্বেও দেশটির সঙ্গে ইইউ জলবায়ু পরিবর্তনসহ নানা ইস্যুতে নতুন অংশীদারিত্ব গড়ে তুলবে। ইইউ ছাড়ার পর ব্রিটেন ১১ মাসের অন্তর্বর্তী সময় পাবে ভবিষ্যৎ অর্থনৈতিক সম্পর্ক নিয়ে আলোচনার জন্য। মার্চেই শুরু হবে বাণিজ্যিক আলোচনা। আগামী ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে আলোচনা শেষ করতে চায় যুক্তরাজ্য।

২০১৬ সালের জুনে গণভোটে সামান্য সংখ্যাগরিষ্ঠতায় যুক্তরাজ্যের ইইউ ছাড়ার প্রস্তাব পাস হয়। এরপর দেশটির রাজনীতিতে চরম অনিশ্চয়তা দেখা যায়। ব্রেক্সিট ইস্যুকে কেন্দ্র করে ব্রিটেনের দু’জন প্রধানমন্ত্রীর ভাগ্য বিপর্যয় ঘটে। একপর্যায়ে ব্রেক্সিট নিয়ে অনিশ্চয়তাও তৈরি হয়। অবশেষে সব অনিশ্চয়তার অবসান ঘটল ইউরোপীয় পার্লামেন্টে ব্রেক্সিট চুক্তি পাসের মাধ্যমে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Skip to toolbar