কুর্মিটোলায় রাস্তা থেকে তুলে ঢাবি ছাত্রীকে ধর্ষণ

রাজধানীর কুর্মিটোলায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের বাস থেকে নামার পর রাস্তা তুলে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করা হয়। ৫ জানুয়ারি, রবিবার গভীর রাতে ওই ছাত্রীকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে তাকে ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে ভর্তি করা হয়।

ভুক্তভোগী ছাত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি হলের আবাসিক শিক্ষার্থী। তিনি ক্যাম্পাসের একটি সংগঠনের সঙ্গেও যুক্ত রয়েছেন।

জানা গেছে, পরীক্ষার প্রস্তুতি নেয়ার জন্য ক্যাম্পাস থেকে কুর্মিটোলায় বান্ধবীর বাসায় যাওয়ার উদ্দেশ্যে বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে ঢাবি’র বাসে ওঠেন ওই ছাত্রী। তিনি ঢাবি-টঙ্গী রুটে চলাচলকারী ‘ক্ষণিকা’ নামের দোতলা বাসে উঠেছিলেন। পরে বাস থেকে কুর্মিটোলা এলাকায় নামার পর অজ্ঞাতপরিচয় কয়েকজন তার মুখ চেপে ধরে। এতে তিনি অজ্ঞান হয়ে পড়েন। এরপর তাকে ধর্ষণ করা হয়। রবিবার রাত ১০টার দিকে জ্ঞান ফেরার পর তিনি সিএনজিচালিত অটোরিকশা নিয়ে বান্ধবীর বাসায় যান। বান্ধবীকে ঘটনা জানান। এরপর সহপাঠীরা তাকে ক্যাম্পাসে নিয়ে আসেন এবং তাকে হাসপাতালে নেয়া হয়।

এ বিষয়ে ক্যান্টনমেন্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কাজী সাহান বলেন, ‘পুলিশ ঘটনাটি জেনেছে। ছাত্রীর সঙ্গে কথা বলতে কর্মকর্তারা হাসপাতালে এসেছেন।’

এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর এ কে এম গোলাম রব্বানীসহ কয়েকজন শিক্ষক রাতেই ভুক্তভোগী ছাত্রীকে দেখতে হাসপাতালে যান এবং তার সঙ্গে কথা বলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Skip to toolbar