নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন হিরো আলম

নিজের ওপর হামলা ও মারধর, কেন্দ্রে ব্যালট পেপার নেই, এজেন্টকে বের করে দেওয়া হচ্ছে সহ একাধিক অভিযোগে অভিযোগ এনে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলম। 

আলম বলেন, ‘আমি ভোটকেন্দ্র পর্যবেক্ষণ করতে বের হয়েছি। এমন সময় হঠাৎ করেই একদল অজ্ঞাত লোক আমার ওপর হামলা করে। আমাকে মারধর করে। আমি তো স্বতন্ত্রপ্রার্থী। আমাকে তাদের এতো ভয় কেন? আমাকে কেন আক্রমণ করা হলো, কেম মারা হলো আমাকে?’

হিরো আলম বলেন, এই প্রশ্ন সবার কাছে রেখে ভোট বর্জন করলাম আমি।’ বগুড়া-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী আশরাফুল ইসলাম আলম ওরফে হিরো আলম।

জানা যায়, আজ সকাল থেকেই হিরো আলম তার নিজ কেন্দ্রে কেন্দ্রে ঘুরে বেড়াচ্ছিলেন এবং পর্যবেক্ষণ করছিলেন। হিরো আলম বলেন, ‘আমাকে এতো ভয়ের কী  আছে। আমি তো কারও ক্ষতি করিনি। জনগণ যদি আমাকে পছন্দ না করেন ভোট দিবেন না। সন্ত্রাসীরা কেন আক্রমণ করবেন?’

তিনি আরও বলেন ‘আগেও বলেছি এখনো বলছি, চেহারা দেখে মানুষের বিচার করা যায় না। প্রতিভা আর ইচ্ছা শক্তিই সবকিছু। দুইবার নিজ এলাকায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে অংশ নিয়েছি। সামান্য ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছি। আমি মনে করি, এটা আমার বিজয়। এলাকার মানুষ আমাকে ভালোবাসে তার প্রমাণ পেয়েছি।’

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বগুড়া ৪ আসন থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে সিংহ প্রতীক নিয়ে লড়ছিলেন আলোচিত মডেল-অভিনেতা হিরো আলম। নির্বাচনের একদিন আগে গণমাধ্যমকর্মীদের নিকট তার নির্বাচনী অফিস ভাঙচুর ও তার সমস্ত পোস্টার ছিঁড়ের ফেলা হয়েছে মর্মে অভিযোগ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Skip to toolbar