বাড়িতে কোয়ারেন্টাইনে থাকতে চাইলে যা যা প্রয়োজন

ভয়াবহ এই রোগ প্রতিরোধের জন্য দেশে বাড়িতে কোয়ারেন্টাইনে থাকতে বলা হচ্ছে কয়েক হাজার মানুষকে।

স্কুল-কলেজ বন্ধ, বহু বেসরকারি অফিস ব্যবস্থা নিয়েছে বাড়িতে থেকেই কাজ করার। সেই সঙ্গে ঘোষণা করা হয়েছে সপ্তাহব্যাপী বন্ধ থাকবে শপিং মল। ঘরে থাকতে হলে প্রয়োজনীয় খাবার ও অন্যান্য জিনিস নিয়ে রাখুন। তবে অবশ্যই অনেক বেশি পণ্য কিনে মজুত করে বাজারে খাদ্য সংকট তৈরি করা যাবে না।

দু’ সপ্তাহ ভালোভাবে চলে যাবে, সেই পরিমাণ জিনিসপত্র, খাবারদাবার কিনে রাখলেই যথেষ্ট! যা যা রাখতে পারেন:

বাড়িতে শিশু রয়েছে? বেবি ফুড, ডায়াপার, বাচ্চাদের অন্যান্য দরকারি জিনিস অবশ্যই সংগ্রহে রাখুন।

চাল, ডাল, আটা, ময়দা, ঘি, মাখন, তেলের মতো যে সব খাদ্যবস্তু বেশিদিন থাকলেও নষ্ট হয় না, সে সব কিনে রাখুন। ডিম কিনে রাখুন বেশি করে।

নানারকম বিস্কুট মুড়ি-চানাচুর- চিপসের মতো টুকটাক খাবার রাখুন সংগ্রহে। চা আর কফি খাওয়ার জন্য দুধ-চিনি, কফিমেট।

আলু, পেঁয়াজ, আদা, রসুনসহ সব ধরনের মশলা।

খেজুর, শুকনো বেরিজাতীয় ফল, কাজু-কিশমিশ-বাদামজাতীয় খাবার কিনে রাখুন।

এছাড়াও করোনা থেকে বাঁচার প্রথম ও প্রধান ধাপ হল পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা। এজন্য পর্যাপ্ত পরিমাণে সাবান, হ্যান্ডওয়াশ, স্যানিটাইজার, ডিটারজেন্ট পাউডার কিনুন।

ওষুধ, তুলা, অ্যান্টিসেপটিক হাতের কাছে রাখবেন। যারা নিয়মিত ওষুধ খান, তারা অবশ্যই দু’ সপ্তাহের ওষুধ কিনে রাখবেন।

টর্চ, মোমবাতি, দেশলাইয়ের মতো জরুরি সরঞ্জাম সংগ্রহে রাখুন।

ফোন আর ইন্টারনেটের মাধ্যমে পরস্পরের সঙ্গে যোগাযোগ রাখুন। নিজেরা গল্প করুন, পছন্দের বই পড়ুন, ঘরের টুকটাক কাজ করুন। দেখতে দেখতে কেটে যাবে কোয়ারেন্টানে থাকার সময়।

তবে আতঙ্কিত হবেন না। নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র ও ওষুদের দোকান খোলা থাকবে সব সময়। এখন কিনে রাখতে না পারলেও সমস্যা নেই। সময় সুযোগ বুঝে পরেও কিনে নিতে পারবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Skip to toolbar