বাম জোটের নির্বাচন প্রত্যাখ্যান

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ও নির্বাচনের ফলাফলকে প্রত্যাখ্যান করেছে ৮টি বামদল নিয়ে গঠিত বাম গণতান্ত্রিক জোট। গতকাল নির্বাচন পরবর্তী এক সংবাদ সম্মেলনে এই প্রতিক্রিয়া জানান জোটের কেন্দ্রীয় নেতারা। 

সংবাদ সম্মেলনে বাম জোটের শীর্ষস্থানীয় নেতৃবৃন্দ বলেন, গোটা দেশকে অবরুদ্ধ করে কোটি কোটি  ভোটারদের ভোটাধিকার হরণ করে আরো একবার যে জবরদস্তিমূলক প্রহসনের নির্বাচন মঞ্চস্থ করা হলো বাম গণতান্ত্রিক জোট এই নির্বাচন ও নির্বাচনের ফলাফলকে ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করছে। আগের রাতে ব্যালট বাক্সে ভর্তি করে রাখা নিরাপত্তার নামে নজিরবিহীন ভয়ভীতি ও আতঙ্কের পরিবেশ সৃষ্টি, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও নির্বাচন সংশ্লিষ্ট সকল প্রতিষ্ঠানের প্রতি নিরঙ্কুশ কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠা ও ন্যক্কারজনক ভূমিকা, বাম জোটের একাধিক প্রার্থীসহ বিরোধী দলগুলোর প্রার্থী ও এজেন্টদের আটক, শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত, কেন্দ্র থেকে জোর করে বের করে দেয়া হয়। প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক নির্বাচনী ব্যবস্থাকে ভেঙে দিয়ে গোটা নির্বাচনকে ব্যর্থ করে দেয়া হয়েছে। এতে সরকারের ছকেরই বাস্তবায়ন করা হয়েছে বলে নেতারা উল্লেখ করেন। 

তারা বলেন, ভোর থেকেই দেশব্যাপী ভোট কেন্দ্র দখল, প্রকাশ্য জালিয়াতি, ব্যালট পেপারে প্রকাশ্যে নৌকা মার্কার সিল মারতে বাধ্য করা, বিরোধীদলীয় ভোটারদের জোর করে ভোটকেন্দ্র থেকে বের করে দেয়া, কোথাও সকাল ১০টা থেকে ১২টার মধ্যে ব্যালট পেপার শেষ হয়ে যাওয়া প্রভৃতি অসংখ্য ঘটনার মধ্যদিয়ে সমগ্র নির্বাচনকে পুরোপুরি অর্থহীন ও হাস্যকর করে তোলা হয়েছে। নেতারা বলেন, এই সমুদয় তৎপরতার মধ্য দিয়ে দেশব্যাপী ভোটারদের মধ্যে ভোট নিয়ে যেটুকু আগ্রহ তৈরি হয়েছিল, তাকে আজ পুরোপুরি নষ্ট করে দেয়া হয়েছে।

দলীয় সরকারের অধীনে বাংলাদেশে ন্যূনতম গণতান্ত্রিক পরিবেশে অবাধ, নিরপেক্ষ, গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের যে কোনো অবকাশ নেই, তা আরেকবার প্রমাণ হলো বলেও জানান এই বাম নেতারা। তারা বলেন, এই নির্বাচন ফলাফল গ্রহণযোগ্য হবে না। এই নির্বাচনে জনগণের মতামতের কোনো প্রতিফলন ঘটেনি।

 জোটের প্রধান সমন্বয়ক ও বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহ আলমের সভাপতিত্বে এসময় অন্যান্যের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন বাসদ (মার্কসবাদী)’র কেন্দ্রীয় নেতা শুভ্রাংশ চক্রবর্তী, বাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য বজলুর রশিদ ফিরোজ, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টির সাধারণ সম্পাদক মোশরেফা মিশু, ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগের মোশাররফ হোসেন নান্নু, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনের হামিদুল হক প্রমুখ। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Skip to toolbar