বুয়েটের ১৯ শিক্ষকের পেনশন সুবিধা দিতে রায় বহাল

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের(বুয়েট) প্রাক্তন তিন উপাচার্যসহ অবসরপ্রাপ্ত ১৯ শিক্ষককে জাতীয় বেতন স্কেল ২০১৫ অনুযায়ী তাদের অবসরোত্তর ছুটি (পিআরএল) ও পেনশন সুবিধা দিতে হাইকোর্টের রায় বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগ।

বৃহস্পতিবার প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন চার বিচারপতির আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আপিল বিভাগের আদেশের বিরুদ্ধ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন ও বুয়েট কর্তৃপক্ষের রিভিউ আবেদন খারিজ করে এ আদেশ দেওয়া হয়। আদালতে শিক্ষকদের পক্ষে শুনানি করেন সিনিয়র আইনজীবী ফিদা এম কামাল, তবারক হোসাইন, ও ব্যারিস্টার উর্মি রহমান। বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের পক্ষে শুনানি করেন সিনিয়র আইজীবী এ এফ হাসান আরিফ।

এর গত বছরের ৮ আগস্ট হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন ও বুয়েট কর্তৃপক্ষের লিভ টু আপিল খারিজ করে পেনশন সুবিধা দিতে হাইকোর্টের আদেশ বহাল রাখেন আপিল বিভাগ। রায় অনুযায়ী সাতজন শুধু পেনশন সুবিধা এবং ১২ জন পাবেন পিআরএল ও পেনশন সুবিধা।

বিভিন্ন সময়ে অবসরে যাওয়া বুয়েটের ১৯ শিক্ষক পিআরএল ও পেনশন সুবিধা থেকে বঞ্চিত হওয়ায় হাইকোর্টে পৃথক তিনটি রিট আবেদন করেন। ওই রিট আবেদনের ওপর চূড়ান্ত শুনানি শেষে গত ৪ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্ট রায় দেন। রায়ের কপি পাওয়ার ৩০ দিনের মধ্যে সংশ্লিষ্ট শিক্ষকদের প্রাপ্য পিআরএল ও পেনশন সুবিধা দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়। এ রায়ের বিরুদ্ধে করা পৃথক পৃথক লিভ টু আপিল আবেদন করে বুয়েট কর্তৃপক্ষ ও বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন। এসব আবেদনের ওপর শুনানি শেষে তা খারিজ করে দেন দেশের সর্বোচ্চ আদালত।

ব্যারিস্টার উর্মি রহমান বলেন, রিট আবেদনকারীদের মধ্যে প্রাক্তন দুই উপাচার্য ড. মো. মনোয়ারুল ইসলাম ও প্রফেসর সাহেদা রহমান এবং অপর ৫ শিক্ষক ড. মো. মোহর আলী, ড. মোস্তফা কামাল চৌধুরী, ড. মো. কামরুল ইসলাম, ড. এম এম শাহিদুল হাসান ও ড. মো. কামরুল আহসান পাবেন কেবল পেনশন সুবিধা। এ ছাড়া প্রাক্তন উপাচার্য ড. মো. মাজহারুল হক এবং ১১ শিক্ষক ড. মো. মীরজাহান মিয়া, ড. আমিনুল হক, ড. মো. ইমতিয়াজ হোসেন, ড. সারওয়ার জাহান, ড. শহিদুল ইসলাম খান, ড. মো. ওবায়েদ উল্লাহ, ড. মো. জয়নুল আবেদিন, ড. মো. আব্দুর রউফ, ড. মো. রিফায়েতউল্লাহ, ড. নিলুফার ফরহাত হোসাইন ও ড. নজরুল ইসলাম পিআরএল ও পেনশন সুবিধা পাবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Skip to toolbar