ড়ি বাড়ি গিয়ে ভোট চাওয়ার সময় ভোটারদের হাতে স্যান্ডেল তুলে দিচ্ছেন আকুলা হনুমন্থ— ইন্ডিয়া টুডে

ভোট চাইতে গিয়ে ভোটারদের স্যান্ডেল দিচ্ছেন প্রার্থী!

নির্বাচনের আগে ভোটারদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোট চাওয়া অতি সাধারণ ঘটনাগুলোরই একটি। নির্বাচনের পর ভোটারদের জন্য কাজ করার কথা মনে থাকুক বা না থাকুক, নির্বাচনের আগে বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোট চাইতে সাধারণত ভুল হয় না প্রার্থীদের।

তবে ভোট চাইতে গিয়ে ভোটারদের হাতে স্যান্ডেল তুলে দিয়েছেন কোনো প্রার্থী— এমন নজির সম্ভবত কোথাও নেই। তবে ঠিক এমনই কাণ্ড ঘটিয়েছেন ভারতের তেলেঙ্গানা রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনের এক প্রার্থী।

আকুলা হনুমন্থ নামের এই প্রার্থী কোনো দল থেকে নয়, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ৭ ডিসেম্বর অনুষ্ঠেয় ভোটের আগে নিজের নির্বাচনী এলাকায় বেশ জোরেশোরের প্রচারণা চালাচ্ছেন তিনি। তবে নির্বাচনী প্রচারণায় তার অভিনব কর্মকাণ্ড উঠে এসেছে মানুষের আলোচনায়।

টাইমস নাউ নিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নির্বাচনী প্রচারণার অংশ হিসেবে বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোট চাওয়ার সময় ভোটারদের হাতে স্যান্ডেল তুলে দিচ্ছেন আকুলা হনুমন্থ। স্যান্ডেল ভোটারদের হাতে তুলে দিয়ে আকুলা তাদের বলছেন, ভোটে তাকে জেতানোর পর পর তিনি যদি প্রত্যাশা পূরণ করতে না পারেন তবে এই স্যান্ডেল দিয়েই যেন তাকে ‘জুতাপেটা’ করা হয়!

শুধু স্যান্ডেল দিয়েই ক্ষান্ত হচ্ছেন না আকুলা, একইসঙ্গে ভোটারদের হাতে তুলে দিচ্ছেন নিজের সই করা আগাম পদত্যাগপত্রও। এর কারণ সম্পর্কে তিনি বলছেন, ভোটে যদি তিনি বিজয়ী হন এবং বিজয়ী হওয়ার পর ভোটারদের পছন্দমত কাজ যদি না করেন তাহলে ভোটাররা যাতে সহজেই তাকে তার পদ থেকে সরিয়ে দিতে পারে সেজন্যই সই করা আগাম পদত্যাগপত্র তুলে দেওয়া হচ্ছে ভোটারদের হাতে।

আকুলার এমন কর্মকাণ্ড বিস্মিত করেছে অনেক ভোটারকে। অনেকে আবার খুব মজাও পেয়েছেন। ভোটররা আকুলাকে ‘জুতাপেটা’ করার বা কাজ পছন্দ না হলে তাকে পদচ্যুত করার সুযোগ আদৌ পাবেন কি-না তা সময়ই বলে দেবে। তবে অভিনব উপায়ে প্রচারণা চালিয়ে শেষ পর্যন্ত আকুলা কী পরিমাণ ভোট নিজের পক্ষে টানতে পারেন সেটাই এখন দেখার বিষয়।

প্রসঙ্গত, তেলেঙ্গানা নির্বাচন কমিশন গত মঙ্গলবার জানায়, রাজ্যের ১১৯টি আসনের বিপরীতে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন ৩ হাজার ৫৮৪ জন, যাদের মধ্যে ২ হাজার ৪৪১ জনই স্বতন্ত্র প্রার্থী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Skip to toolbar